পেট ব্যথা কমায় যে ৫ খাবার

ফাস্ট ফুড, ব্যস্ত জীবনযাত্রার যুগে গ্যাস, পেটের অসুখ এখন ঘরোয়া রোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভাজা-পোড়া অথবা দাওয়াত, পার্টিতে মসলাযুক্ত খাবার খাওয়ার পর অনেক সময় অস্বস্তিকর গ্যাসের সমস্যা শুরু হয়।

পেট খারাপ, গা বমি ভাব বা অ্যাসিডিটির নানা রকম ওষুধ বা সমাধান রয়েছে। পেটে ব্যথার সে অর্থে কোনও সমাধান নেই। পেটের ভিতর গোলমালগুলো বন্ধ হয়ে গেলেও পেট ব্যথা কমে যায়।

অনেক সময়ে প্রচুর পরিমাণে পানি খেলে পেটের সব বিষাক্ত পদার্থ বেরিয়ে যায় শরীরে থেকে। তাতেও পেটে ব্যথা থেকে নিস্তার পাওয়া যায়।

কিন্তু এমন কিছু টোটকা যদি পাওয়া যায়, যাতে পেটের যন্ত্রণা থেকে খানিক মুক্তি পাওয়া যাবে। ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যেগুলো প্রয়োগ করলে গ্যাস, বুক জ্বালা বা পেট ব্যথা থেকে সহজেই বাঁচা যায়। জেনে নিন কী খাবেন এই সময়ে।

কাঁচাকলা

কাঁচাকলা টোটকা বাঙালিদের খুব চেনা। একটু পেট খারাপ হলেও কাঁচাকলা দিয়ে শিং মাছের ঝোল খাওয়ার রীতি রয়েছে আমাদের। কাঁচাকলা সিদ্ধ করে খেলেও তা পেটে ব্যথা এবং পেটের প্রদাহ কমতে সাহায্য করে। কাঁচাকলায় রয়েছে ভিটামিন বি৬, ফোলেট এবং পটাশিয়াম। শরীরে কোনও পেশিতে টান লাগলে, ব্যথা হলে বা ক্র্যাম্প হলে তা কমাতে সাহায্য করে এই মিনারেলগুলো।

আদা

আদা প্রাকৃতিক ঔষধি গুণাগুণেও ভরপুর। অতি প্রাচীনকাল থেকেই এটি ভেষজ ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। আদাতে আছে শক্তিশালী এন্টি-অক্সিডেন্ট, এন্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যালার্জি প্রতিরোধক উপাদান। পেটে ব্যথা হলে আদা চা খেতে পারেন। আদাতে রয়েছে বেদনানাশক উপাদান যা সহজেই তাৎক্ষণিকভাবে পেটে ব্যথা কমায় ও আরাম দেয়।

দই

পেটের ব্যথা, প্রদাহ ও পেট ফাঁপার মতো সমস্যা দূর করতে পারে দই। দইয়ে থাকা স্বাস্থ্যকর ব্যাকটেরিয়া হজমশক্তি বাড়ায় এবং পেটের নানা রকম ব্যথা উপশম করে। নিয়মিত দই খাওয়া হলে তা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে। এ ছাড়া দই দেহের রক্তের শ্বেতকণিকা বাড়িয়ে দেয়, যা জীবাণু সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। তাই দইয়ের মতো প্রোবায়োটিক খেলে তা এই ভারসাম্য বজায় রেখে পেটে ব্যথা কম করতে পারে।

ক্যামোমিল চা

ক্যামোমিল চা বদহজম, বমি ভাব, ডায়রিয়া, পেটে ব্যথা অসুখে দারুণ কাজে দেয়। ক্যামোমিল ভেষজের গুণ নিয়ে খুব বেশি গবেষণা এখনও পর্যন্ত না হলেও এর নানা রকম উপকারিতার কথা অনেকেই মানেন। তাই পেটে ব্যথায় ক্যামোমিল চায়ের উপর ভরসা করতেই পারেন।

পিপারমেন্ট চা

ভেষজ চা পিপারমেন্টও দারুণ কাজে দেয় পেটে ব্যথার সময়ে। যাদের ইরিটেবিল বাওয়েল সিন্ড্রোম রয়েছে, তাদের কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া, বদহজম, পেট ব্যথার মতো নানা উপসর্গ লেগেই থাকে। সেগুলো কমাতে সাহায্য করে পিপারমেন্ট টি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*