কঠিন লড়াই সত্তেও হার না মেনে মানুষকে হাসানোর নাম শুভাশিস মুখোপাধ্যায়, রইলো তার জীবন কাহিনী

শুভাশিস মুখোপাধ্যায়, যারা বাংলা সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন এবং বাংলা সিনেমার ব্যাপারে অনেক কিছু জানতে চান তাদের কাছে এই শুভাশিস মুখোপাধ্যায় নামটি অত্যন্ত জনপ্রিয়।

একটা সময় তিনি ছিলেন বাংলার সবথেকে বড় কৌতুক অভিনেতা দের মধ্যে একজন। যেকোনো বাংলা সিনেমা হোক না কেন কৌতুক চরিত্রে শুভাশিস মুখোপাধ্যায় দাপিয়ে অভিনয় করে গেছেন।

সিনেমার বাকি চরিত্রদের অভিনয় খুব একটা ভালো না হলেও শুভাশিস মুখোপাধ্যায় এর অভিনয় কিন্তু সবসময় নজরকাড়া থাকতো। সকলে তার অভিনয় দেখতে পছন্দ করতেন

এবং শুভাশিস মুখোপাধ্যায় নিজেই নিজের একটি ব্র্যান্ড তৈরি করে নিতে সক্ষম হয়েছিলেন নিজের সময়। কিন্তু, এই লোক হাসানো অভিনেতা পিছনে ছিল একটি বড় ইতিহাস। অনেকেই হয়তো সেই ইতিহাসটা জানেন না।

একটা সময় ছিল যখন কোন হাসির ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় দেখতে পেয়েছি আমরা শুভাশিস মুখোপাধ্যায় কে। তখন শুভাশিস ছাড়া অন্য কারো কথা ভাবতেই পারতেন না কোন পরিচালক। অঞ্জন চৌধুরী থেকে শুরু করে, স্বপন সাহা, হরনাথ চক্রবর্তী, এমনকি এই যুগে নব্য পরিচালক সন্দীপ রায় এবং আরো অনেকের সঙ্গে তিনি কাজ করেছেন। চলুন আজ এই কৌতুক অভিনেতা শুভাশিস মুখোপাধ্যায় এর জীবন কাহিনী সম্পর্কে একটু জেনে নেওয়া যাক।

তার জন্ম কলকাতায়। উত্তর কলকাতার স্কটিশ চার্চ স্কুল থেকে তিনি উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। এরপরে সরাসরি শেঠ আনন্দরাম জয়পুরিয়া কলেজ থেকে বি.কম ডিগ্রী লাভ করেন। কিন্তু নিজের পড়াশোনা দিয়ে খুব একটা কিছু করতে পারবেন না তিনি আগেই বুঝতে পেরেছিলাম কারণ সেই সময় কমার্স ডিগ্রি খুব একটা দামী ডিগ্রি ছিল না। তার বাবা ছিলেন একজন চার্টার্ড একাউন্টেন্ট। কিন্তু তার পারিবারিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল না। অভিনয় জগতে যখন তিনি প্রবেশ করেন তখন অনেকে তাকে অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায় এর ছেলে ভেবেছিলেন। তারপর আস্তে আস্তে সেই ভ্রান্ত পরিচয় দূরে ফেলে দিয়ে নিজের একটি আলাদা পরিচয় তৈরি করতে শুরু করেন।

শুভাশিস মুখোপাধ্যায় অল্প বয়সে অত্যন্ত ভালো ক্রিকেট খেলতেন কিন্তু তার পারিবারিক অবস্থা এতটাই খারাপ ছিল যে তিনি ক্রিকেট কোনদিন খেলতে পারবেন এটা স্বপ্ন ভেবে উঠতে পারেননি।বিকম পাস করার পরে একটি কসমেটিক সংস্থায় কাজ করে তিনি তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন। তারপরে পূর্ণেন্দু পত্রী নির্দেশিত ছোট বকুলপুরের যাত্রী সিনেমা দিয়ে তার অভিনয় জীবনের সূত্রপাত।

সেই সিনেমায় অভিনয় দক্ষতার মাধ্যমে তিনি সকলকে একেবারে মুগ্ধ করে দিয়েছিলেন। তারপর তাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। তারপর একে একে কত ভালোবাসা, গুরু শিষ্য, বকুল প্রিয়া, শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ, দাদা ঠাকুর, প্রতিদ্বন্দ্বী, রাজমহল, খোকাবাবু, মেঘে ঢাকা তারা সহ বহু ছবিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন।

এছাড়াও ২০১২ সালে তিনি বাংলা কালজয়ী কমেডি চরিত্র টেনিদা চরিত্র অভিনয় করে সকলকে একেবারে মুগ্ধ করে দিয়েছিলেন। এছাড়াও মহালয়া ছবিতে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের ভূমিকায় তাকে আমরা দেখতে পেয়েছিলাম। তার পাশাপাশি ফেলুদার একটি ছবি গোরস্থানে সাবধান এ নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। এছাড়াও বাঙালি অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তী অভিনীত ব্রহ্মা জানেন গোপন কর্মটি সিনেমায় তাকে আমরা দেখেছিলাম হিন্দু পুরোহিতের ভূমিকায় অভিনয় করতে। এছাড়াও জড়োয়ার ঝুমকো, কলের বউ, তারানাথ তান্ত্রিক এবং রাখি বন্ধন এর মতো বেশকিছু সিরিয়ালে তিনি অভিনয় করে সকলকে তার অভিনয় দক্ষতা এর মাধ্যমে মুগ্ধ করে গিয়েছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*